আমাদের ব্লগ

ইবনে সিনা
চিকিৎসাবিজ্ঞানে ইবনে সিনার বিষ্ময়কর দক্ষতা

চিকিৎসাবিজ্ঞানে ইবনে সিনার বিষ্ময়কর দক্ষতার কথা বলতে গিয়ে নিজামী এক আশ্চর্য ঘটনা বর্ণনা করেছেন ।

একবার বুয়াইদ বংশীয় একজন যুবরাজ এক বিচিত্র ব্যাধিতে আক্রান্ত হয় । এরকম রোগের কথা কেউ কখনও শোনেনি । অসুস্থ যুবকের বদ্ধমূল ধারণা হয়েছে, সে একটা গরু ! তাই অল্পদিনের গরুসুলভ আচরণও মধ্যে শুরু করে । যখন-তখন সে ‘হাম্বা হাম্বা’ শদ্ব করতো এবং সবাইকে কাতর গলায় অনুরোধ জানাতো- ‘দয়া করে আমাকে জবাই করুন । আমি খুব ভালো গরু । আমার গোস্তে উৎকৃষ্ট কাবার হবে’ । যুবকের এরকম বিচিত্র ও অসহ্য আচরণে বাড়ির লোকেরাতো অবশ্যই এমনকি প্রতিবেশীরাও অতিষ্ঠ হয়ে উঠলো । শেষ পর্যন্ত যুবকটির এমন অবস্থা হলো যে, সে খাওয়া-দাওয়া সম্পূর্ণ ছেড়ে দিলো । রাজবংশের ছেলের চিকিৎসায় ডাক্তার-কবিরাজের কোন অভাব থাকলো না । অনেক ডাক্তার-কবিরাজ আসলো । রকমারি সব ঔষধপত্র দিলো । কিন্তু কোন কিছুতেই কিছু হলো না । যুবকের হাম্বা হাম্বা শদ্ব আর জবাই করার একঘেয়ে আবদাদের সবাই বিরক্তির শেষ সীমায় চলে গেল ।

আলাউদ্দৌলা অবশেষে এ ব্যাপারে শরণাপন্ন হলেন তাঁর বিচক্ষণ ও নির্ভরযোগ্য মন্ত্রী ইবনে সিনার । গুরুত্বপূর্ণ রাজদায়িত্ব পালনে অসম্বব ব্যাস্ততার জন্যে  আলাউদ্দৌলা তাঁর অসুস্থ আত্মীয়ের কথা ইবনে সিনাকে বলার অবকাশ পাননি ।

এখানে উলেখ্য যে ইবনে সিনা ইস্পাহানে পৌছার সঙ্গে সঙ্গে বাদশা আলাউদ্দৌলা অনেক মূলবান উপহার সামগ্রী সহ এসে ইবনে সিনাকে অভ্যার্থনা জানালেন । কিছুদিনের মধ্যেই ইবনে সিনা যথাযোগ্য মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত হলেন ইস্পাহানের শাহি দরবারে । তাঁর বিচক্ষণতায় সন্তুষ্ট হয়ে বাদশা  আলাউদ্দৌলা ইবনে সিনাকে নিযুক্ত করলেন রাজ্যের মন্ত্রী হিসেবে ।

ইবনে সিনা, বাদশা আলাউদ্দৌলা মুখ থেকে সব কথা শুনে রোগীর কাছে লোক মারফৎ এই সুখবর পাঠালেন যে, ‘আর কোন চিন্তা নেই । তোমাকে জবাই করার জন্যে সত্যিই একজন কসাই আসছে এবার’ । রোগীর তখন মুমূর্ষ অবস্থা । কিন্তু কসাই আসছে- এই কথাটা কানে আসা মাত্রই সঙ্গে সঙ্গে সে খুশিতে শয্যার উপর উঠে বসলো ।

ইবনে সিনা নিজেই একটা বড় চকচকে ধারালো ছুরি হাতে রোগীর ঘরে ঢুকে হাক দিলেন, ‘কই, গরুটা কোথায় ? আমি জন্তুটাকে জবাই করতে এসেছি।’ রোগী তো সঙ্গে সঙ্গে হাম্বা হাম্বা আওয়াজ করে নিজের অবস্থান ঘোষনা করতে লাগলো মহা আনন্দে । কসাইরূপী ইবনে সিনা বললেন, ‘তোমরা চটপট গরুটাকে ভালো করে বেঁধে ফ্যাল তো ! হুশিয়ার, পা-গুলো কষে বাঁধবে কিন্তু । একটুও যেন নড়তে না পারে ।’ অন্য কেউ সেই হুকুম তামিলের সুযোগ পেল না । তার আগেই রোগী রোগশয্যা থেকে দৌড়ে এসে মেঝের উপর কাৎ হয়ে শুয়ে পড়লো । নড়াচড়া একদমই নেই । তবুও কশাইয়ের কথামতো কয়েকজন তাগড়া লোক মোটা দাড়ি এনে যুবকের হাত-পা-গুলো বেঁধে ফেললো । এবার ছুরি ধার করে এগিয়ে এলেন ইবনে সিনা । প্রকৃত কশাই যেমন সত্যিকারের গরু জবাইয়ের আগে খুটিয়ে খুটিয়ে দেখে- তিনি ঠিক সেই ভাবে পরখ করতে লাগলেন রজ্জুবদ্ধ যুবকটিকে । কিছুক্ষন হাত-পা টিপেটুপে দেখে মুখ বেঁকিয়ে বললেন, ‘এতো দেখছি হাড্ডিসার গরু । এই রোগা গরুর গোস্ত কে খাবে ? নাহ্- এরকম একটা টিঙটিঙে গরু জবাই করতে আমি রাজি নই । এক বেশী বেশী ঘাস-পানি খাওয়াতে হবে, বুঝলে ? তাহলে শিকগির সে জবাই করার উপযুক্ত হবে । এখন এই বাজে গরুটাকে জবাই করা যাবে না ।’ তারপর রোগীর দিকে চেয়ে বললেন, ‘ভালোভাবে খড়বিচালি খাও- বুঝতে পারলে ! তোমাবে বেশ মোটাতাজা হতে হবে । নইলে গলায় ছুরি ধরবে না !’

আশ্চর্য! কথামতো কাজ হলো । অল্পকয়েকদিনের মধ্যে রোগীর ক্ষুধামান্দ্য দূর হলো এবং আগের মতোই তার খিদে পেতে লাগলো । সে পেট ভরে খেতে শুরু করলো । সেইসঙ্গে তার খাবারের মধ্যে মিশিয়ে দেয়া চলতে লাগলো ইবনে সিনার দেয়া ঔষধ । একমাসের মধ্যে দেখা গেল যুবকটি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠল । নিজেকে তার অবিরাম গরু মনে করা এবং অবিলম্বে জবাই হবার বাসনা মিলিয়ে গেল বিষ্ময়ভাবে ।

ইবনে সিনা নিজ প্রতিভার যোগ্যতায় ইস্পাহানের বাদশা  আলাউদ্দৌলার অত্যন্ত বিশ্বস্ত ও অন্তরঙ্গ বন্ধুতে পরিণত হন তার প্রমাণ পাওয়া যায় ‘চাহার মাকালার’ বর্ণনায় ।

 

#IGSRC

তথ্যসূত্র:

  1. The Air of History (Part V) Ibn Sina (Avicenna): The Great Physician and Philosopher

  2. (IBN SINA) A short biograpgy of ibn sina by Abu Kaiser